The poem | On Killing a Tree | describes man’s cruelty and violence to nature | Discuss

QUSTION

The poem, ‘On Killing a Tree’, describes man’s cruelty and violence to nature. — Discuss.

Or

How has Gieve Patel shown violence and the philosophy of non – violence in the poem, ‘On Killing a Tree’?

ANS

Gieve Patel’s poem ‘On Killing a Tree’ presents a vivid description of man’s cruelty and violence to nature to advocate the philosophy of non – violence. In the poem, the tree stands for nature that provides nourishment for man. But modern man, out of selfish greed, kills a tree and thereby destroys nature. The poet describes the whole process of killing a tree. Neither a simple jab of the knife nor hacking and chopping can kill a tree. It is firmly fixed with its roots anchored in the earth. So, it has to be roped, tied and pulled out of the earth – cave to kill it completely. Then it has to be exposed to sunlight and air scorching, choking, browning, hardening, twisting and finally withering. The poet uses a number of images of death to highlight man’s cruelty and violence. Thus he tries to arouse our love and sympathy for all its objects of nature.

বাংলা অনুবাদ

প্রশ্ন

‘On Killing a Tree’ কবিতাটি প্রকৃতির প্রতি মানুষের নিষ্ঠুরতা ও হিংস্রতাকে তুলে ধরে— আলােচনা করাে।

অথবা

 ‘On Killing a Tree’ কবিতায় জীভ প্যাটেল কীভাবে হিংসা এবং অহিংসার দর্শন বর্ণনা করেছেন?

উত্তর

জীভ প্যাটেলের কবিতা ‘On Killing a Tree’ প্রকৃতির প্রতি মানুষের নিষ্ঠুরতা ও হিংস্রতার সুস্পষ্ট বর্ণনা দেয়। কবিতাটিতে গাছ হচ্ছে সেই প্রকৃতির প্রতীক যে প্রকৃতি মানুষকে বাঁচার রসদ জোগায়। কিন্তু আধুনিক মানুষ স্বার্থপর লােভের কারণে গাছকে মেরে ফেলে এবং এভাবেই প্রকৃতিকে ধ্বংস করে। কবি একটি গাছকে মেরে ফেলার সমগ্র পদ্ধতির বর্ণনা দিয়েছেন। সাধারণ ছুরিকাঘাতে অথবা প্রবল আঘাতে টুকরাে টুকরাে করে কাটলেও গাছকে মেরে ফেলা যায় না। মাটির গভীরে আঁকড়ে ধাকা শিকড়ের সাহায্যে এটি দৃঢ়ভাবে আবদ্ধ। তাই একে পুরােপুরি মেরে ফেলতে গেলে দড়ি পরিয়ে, বেঁধে পৃথিবীর গভীরতা থেকে উপড়ে ফেলতে হবে। তারপর একে মুক্ত বাতাসে ও সূর্যালােকে ফেলে রাখতে হবে যাতে ঝলসে, শ্বাসরুদ্ধ হয়ে, বাদামী বর্ণ ধারণ করে, শক্ত হয়ে, দুমড়ে – মুচড়ে শেষপর্যন্ত শুকিয়ে যায়। কবি মানুষের নিষ্ঠুরতা ও হিংসাকে তুলে ধরতে অনেকগুলাে মৃত্যুর চিত্রকল্প ব্যবহার করেছেন। এভাবে প্রকৃতির সমস্ত বস্তুর প্রতি আমাদের ভালােবাসা ও সহানুভূতি জাগিয়ে তােলার চেষ্টা করেছেন তিনি।

Leave a Comment